15 C
Guwahati
Wednesday, January 26, 2022
More

    ৭ বছর আগের ঘটনা, রাহুল গান্ধীর জন্যই আজ মুখ্যমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব!

    ৭ বছর আগের ঘটনা, রাহুল গান্ধীর জন্যই আজ মুখ্যমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব!

    গুয়াহাটি, জুন : ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের কথিত যুবরাজ রাহুল গান্ধী। ৭ বছর আগে সেই যুবরাজকে কেন্দ্র ঘটে যাওয়া একটি ঘটনাই অসম তথা উত্তরপূর্বের রাজনীতির চিত্রপট পাল্টে দিয়েছে আমূল। এক নতুন যাত্রাপথে বহু চড়াই-উতরাই পেরিয়ে রাজ্য রাজনীতির শীর্ষ আসনে অধিষ্ঠিত হয়েছেন অসমের ‘ডায়নামিক লিডার’ ড° হিমন্তবিশ্ব শর্মা। মূলত রাহুল গান্ধীর জন্যই রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের শিখরে পৌঁছাতে পেরেছেন ড°শর্মা। একটি সর্বভারতীয় সংবাদসংস্থার  ই-আড্ডায় অনেকটা কৌতুকের সুরে একথা স্বীকার করে রাহুল গান্ধীকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি। বলেছেন, রাহুল গান্ধী না থাকলে আমি আজ এই জায়গায় পৌছাতে পারতাম না। 

    কয়েক হাজার বছর আগে নন্দবংশের শেষ রাজা ধনানন্দ অপমান করেছিলেন চাণক্যকে। বাকিটা ইতিহাসের পাতায় লিপিবদ্ধ। বহু শতাব্দী পেরিয়ে সেই ঘটনারই যেন পুনরাবৃত্তি ঘটল অসমে। অন্তত রাজ্য রাজনীতিতে ঘটে যাওয়া ৬-৭ বছরের ঘটনাবলিতে চোখ রাখলে এ কথাটিই প্রমাণিত হয়, ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি ঘটে ! এক সময়ের এপিসিসির দাপুটে নেতা হিমন্তবিশ্ব শর্মা দলের অন্দরেই কোণঠাসা, তাঁর বিজেপিতে যোগদান, প্রায় শূণ্যের কোঠা থেকে সেই নতুন দল (বিজেপি)কে একেবারে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত করা, এমনকি উত্তর-পূর্বের ঘোর অবিজেপি রাজ্যগুলিতে সরকার গঠন করে তিনি দেখিয়ে দিয়েছেন– আত্মবিশ্বাস থাকলে ঊষর মরুভূমিতেও ফুল ফোটানো সম্ভব। 

    কী সেই ঘটনা, যা হিমন্তবিশ্ব থেকে গোটা ভূখণ্ডের রাজনৈতিক সমীকরণটাই পাল্টে দিয়েছে! ঘটনাটি বহুল-চর্চিত হওয়া সত্ত্বেও এনিয়ে সাধারণ মানুষের কৌতূহল উত্তরোত্তর বেড়েছে বই কমেনি। ২০১৬-র নির্বাচনের বেশ কয়েকমাস আগের কথা। হিমন্তবিশ্ব তখনও কংগ্রেসেই। তবে মুখ্যমন্ত্রীত্বের প্রশ্নে  ততদিনে দলের সঙ্গে দূরত্ব অনেকটা -ই বেড়ে গিয়েছে তাঁর। এ নিয়ে দিল্লিতে আহমেদ প্যাটেল, মল্লিকার্জুন খড়্গে এবং গুলাম নবী আজাদের মতো অনেক প্রবীণ নেতার উপস্থিতিতে তিনি তাঁর পদত্যাগের কথা জানালেন সোনিয়া গান্ধীকে। তখন তাঁকে বলা হলো, চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে তিনি যেন বিষয়টি নিয়ে একবার রাহুল গান্ধীর সঙ্গে আলোচনা করেন। হিমন্তবিশ্ব শর্মা দেখা করলেন রাহুল গান্ধীর সঙ্গে।

    রাগার সঙ্গে তাঁর সে বৈঠকে তিক্ত অভিজ্ঞতা হয়েছিল। সেদিন নিজেকে চূড়ান্ত অপমানিত মনে করেছিলেন অসম সন্তান। পরবর্তীতে যা একাধিকবার প্রকাশ্যে এনেছেন ড° শর্মা। তাঁর কথায়, সেদিন রাহুল গান্ধীর পোষা কুকুর পিডি এবং কংগ্রেসের অনেক সিনিয়র নেতা একই প্লেট থেকে বিস্কুট খেয়েছেন। রাহুল গান্ধীর সঙ্গে বৈঠকে তিনি তাঁর প্রশ্নের কোনও সদুত্তর পাননি। প্রায় কুড়ি মিনিটের বৈঠকে যতবার হিমন্তবিশ্ব কোনও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের অবতারণা করেছেন, রাহুল তা এড়িয়ে গিয়েছেন। অন্তত ৫০ বার পালটা প্রশ্ন করেছেন, ‘ তাতে কী?’। 

    ‘পিডি’ কুকুরটির জন্য বিখ্যাত হয়ে ওঠা বৈঠককে স্মরণ করে শর্মা বলেন, ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন অসমের প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ, সি পি জোশি এবং প্রয়াত অঞ্জন দত্ত। তারা বৈঠকে  ২০১৬ সালের অসম বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে আলোচনা শুরু করেন। কিন্তু  তাতে গুরুত্বই দেননি রাহুল গান্ধী।  বরং তিনি তাঁর পোষা  কুকুরের সঙ্গে খেলছিলেন।  কিছু সময় পর চা-বিস্কুট পরিবেশন করা হয়। কুকুরটি টেবিলের উপরে উঠে প্লেট থেকে একটি বিস্কুট তুলে নেয়। এতে রাহুল গান্ধী  হাসতে শুরু করেন। চায়ের কাপ হাতে নিয়ে হিমন্ত ভেবেছিলেন, যে  রাহুল হয়ত কাউকে প্লেটটি পরিবর্তন করতে বলবেন। কিন্তু  ৫ মিনিট অপেক্ষা করার পরে তিনি দেখতে পান যে উপস্থিত সমস্ত কংগ্রেস নেতা বিস্কুটগুলি একই প্লেট থেকে নেওয়া শুরু করেছেন। হিমন্তবিশ্ব শর্মা বলেন, “আমি ঘন ঘন দর্শনার্থী ছিলাম না। তবে বুঝতে পেরেছিলাম যে, এটি অবশ্যই সবার জন্য স্বাভাবিক ব্যাপার, রাহুলের বৈঠকে এমন ঘটনা হামেশাই ঘটে। তাই সেদিনই নিজেকে বলেছিলাম, আর যাই হোক, এর সান্নিধ্যে আর নয়।’

    আরো দেখুন : পশুকুলেও থাবা, করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত সিংহ, আক্রান্ত আরও ৯

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং