26 C
Guwahati
Thursday, October 6, 2022
More

    নিশ্চিন্ত না হয়েই ব্ল্যাক ফাঙ্গাস রোগীর নাম ঘোষণা, সরকারি বিভ্রান্তিতে আতঙ্ক শিলচরে

    শিলচর, ৩০ মে : করোনা পরবর্তী শারীরিক সমস্যা নিয়ে শিলচর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক রোগীকে ঘিরে শুরু হয়েছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস-এর চর্চা। শনিবার ভিডিও বুলেটিনে কাছাড়ের স্বাস্থ্যবিভাগের মিডিয়া এক্সপার্ট সুমন চৌধুরী এ ঘোষণা করার পরই খবরটা ছড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন মহলে। সৃষ্টি হয় আতঙ্কের। সুমন ভিডিও বার্তায় জানান, অলক দেব নামের এক রোগীর জায়নি।নাকি ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের উপস্থিতি ধরা পড়েছে। তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন মেডিক্যালের চক্ষু বিভাগে।

    এই ঘোষণার কিছুক্ষণ পরই মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের উপাধ্যক্ষ ডা: ভাস্কর গুপ্ত আরেকটি ভিডিও বার্তা পোস্ট করে জানান, ওই রোগী বাস্তবিকই ব্ল্যাক ফাঙ্গাস-এ আক্রান্ত কিনা, এনিয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। ডা: গুপ্ত সন্দেহভাজন এই রোগীর নাম ঠিকানা কিছুই বলেননি। মেডিকেলের অন্য এক সূত্রে জানা গেছে, বছর ৪২-এর ওই রোগী করিমগঞ্জের বাসিন্দা। করোনা পরবর্তী সমস্যা নিয়ে দিন চারেক আগে তিনি ভর্তি হয়েছেন মেডিক্যালে।

    বিষয়টি নিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি হলে ড্যামেজ কন্ট্রোলে আসরে নামেন খোদ জেলাশাসক কীর্তি জল্লি সহ মেডিক্যাল কর্তৃপক্ষ। জেলাশাসক- এর পক্ষ থেকে বিবৃতি দিয়ে বলা হয়, শিলচরে কোনও রোগীর শরীরে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস ধরা পড়েনি। এ নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই। আর মেডিক্যালের উপাধ্যক্ষ ডা: ভাস্কর গুপ্ত তাঁর ভিডিও বার্তায় বলেন, ব্ল্যাক ফাঙ্গাস নিয়ে যে খবর চাউর হয়েছে, এর জেরে মেডিক্যাল কর্তৃপক্ষ খোঁজ খবর নিয়ে দেখেছেন। আসলে তিনি যে ওই রোগে আক্রান্ত, এ নিয়ে নিশ্চিত হওয়া যায় নি। সন্দেহভাজন ওই রোগীর এম আর আই-কালচার ইত্যাদি করা হচ্ছে। কালচারের ফল আসতে ৪-৫ দিন সময় লেগে যায়। সম্পূর্ণ রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত,বলা সম্ভব নয়  যে তিনি ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত। সঙ্গে তিনি অভয় দিয়ে বলেন, শুরুতে চিহ্নিত করা সম্ভব বলে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত রোগীকে চিকিৎসা করে  সারিয়ে তোলা সম্ভব। আর শিলচর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের চিকিৎসার পুরো ব্যবস্থা রয়েছে। তাই এ নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই।

    এদিকে জেলাশাসক ও মেডিক্যালের উপাধ্যক্ষের এমন বিবৃতির মাঝে  সুমন চৌধুরী হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে পোস্ট করা তার ভিডিও বার্তা ডিলিট করে দেন। এরপর ভুল স্বীকার করে সঙ্গে ক্ষমা চেয়ে বলেন, ওই রোগী যে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত তা নিশ্চিত নয়। ব্যাপারটা রয়েছে পরীক্ষা-নিরীক্ষার স্তরে। বর্তমান মহামারীর সময় সরকারি ক্ষেত্রে এমন বিভ্রান্তিকর তথ্যে শুধু শিলচর নয়, গোটা বরাক উপত্যকাজুড়ে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের দ্বিতীয় ঘটনা প্রকাশ্যে আসায় রাজ্যজুড়ে আলোচনা চলছে।

    আরো দেখুন : বেসরকারি হাসপাতালে কোভিড রোগী ভর্তিতে অনীহা, জবাব চাইল হাইকোর্ট

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং