28 C
Guwahati
Tuesday, October 4, 2022
More

    ৬ মাস দিল্লি অবরুদ্ধ করার হুঙ্কার কৃষকদের, নিঃশর্তে আলোচনায় রাজি কেন্দ্র

    নয়াদিল্লি, ১ ডিসেম্বর : ৫ দিন ধরে অবরুদ্ধ রাজধানী দিল্লি। মঙ্গলবার কৃষক বিক্ষোভ ৬ দিনে পড়ল।বিভিন্ন রাজ্যের প্রায় ১২ লক্ষ কৃষক এখন পর্যন্ত এই আন্দোলনে সমবেত হয়েছেন। আসছেন আরও। সব মিলিয়ে জনসুনামি নেমেছে দিল্লিতে। কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে দিল্লি ঘেরাও করেছেন এই কৃষকরা। কৃষক জন সংঘর্ষ সমিতি, সারা ভারত কৃষক সভা সহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃত্বে এই আন্দোলনে উত্তাল রাজধানী। পরিস্থিতি ঘোরতর বুঝে এবার কোনও শর্ত ছাড়াই আন্দোলনকারী সংগঠনগুলির নেতৃত্বের সঙ্গে আলোচনা করতে তৈরি হয়েছে এনডিএ সরকার। মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রস্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। অন্যদিকে বারাণসী থেকে সোমবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বার্তা দেন, কৃষি আইনে কৃষকদের ক্ষতি হবে না। কিন্তু তাঁর এই বার্তা বিক্ষোভকারী কৃষকরা তুড়ি মেরে উড়িয়ে আন্দোলনে অনড়।

    মঙ্গলবার সকালেই শোনা যায়, সরকার এদিনই তাঁদের সঙ্গে কথা বলবে। দুপুর নাগাদ জানা যায় সরকারের প্রতিনিধি হিসাবে কৃষকদের সঙ্গে কথা বলবেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। তার আগে এদিন সকালে তিনি বিজেপির সভাপতি জে পি নাড্ডার বাড়িতে আলোচনায় বসেন। সেখানে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র তোমর। একটি সূত্রে জানা গিয়েছে, সরকার কৃষকদের আশ্বাস দেবে, নতুন কৃষি আইনে তাঁদের ক্ষতি হবে না। চাষিরা ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য পাবেন না বলে যে কথা শোনা যাচ্ছে, তা নিতান্তই গুজব। আন্দোলনরত কৃষকদের অন্যতম নেতা হান্নান মোল্লা বলেছেন, আমাদের দাবি একটাই। নতুন কৃষি আইন বাতিল করতে হবে। ওই দাবির ভিত্তিতে আমরা আলোচনায় বসতে চাই। সরকার উল্টোপাল্টা বলে সবার মনোযোগ অন্যদিকে ঘুরিয়ে দিতে চাইছে।

    এদিকে এখনও দিল্লিকে ঘিরেই এই বিক্ষোভ চলছে।এর ফলে দিল্লির সঙ্গে হরিয়ানা, পাঞ্জাব ও উত্তর প্রদেশের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। খাদ্য সংকট শুরু হতে চলেছে রাজধানীতে। এতেই দিল্লির বাসিন্দারা উদ্বিগ্ন। দাম চড়ছে হু হু করে। অন্যদিকে আন্দোলনকারী কৃষকদের জন্য হরিয়ানার কৃষকরা লরি লরি ফুলকপি, মুলো সহ সবজি পাঠাচ্ছেন। বিক্ষোভকারীদের দাবি, সরকার আইন বাতিল না করলে আগামী ৬ মাস দিল্লি ঘেরাও করা হবে। বিরোধী কংগ্রেস, সিপিএম, সিপিআই সহ বিভিন্ন বাম দল ও একাধিক বিরোধী দল এবারের ঐতিহাসিক কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন করেছে। এই আন্দোলনে সামিল এনডিএ জোট ত্যাগ করা শিরোমনি আকালি দল। কেন্দ্রের কৃষি নীতি প্রত্যাহারের দাবিতে দেশের বিভিন্ন রাজ্যেও চলছে কৃষক বিক্ষোভ। বাম কৃষক সংগঠনের পাশাপাশি এতে সামিল হয়েছে এআইকেএসসিসি, আরকেএমএস, বিকেইউ (রাজেওয়াল), বিকেইউ (চাদুনি) সহ অন্যান্য কৃষক সংগঠন।যার ফলে সরকার এখন কিছুটা ব্যাকফুটে।

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং