31 C
Guwahati
Tuesday, October 4, 2022
More

    ৫৪ শতাংশ মেয়ে স্যোশাল মিডিয়ায় বিনা কারণেই অপমানের শিকার হচ্ছে! সমীক্ষা

    নয়াদিল্লি, ৯ অক্টোবর : সামনেই আন্তর্জাতিক শিশু কন্যা দিবস। মেয়েদের সুরক্ষার কথা ভেবেই ২০১২ সাল থেকে ১১ অক্টোবর এই দিনটি পালন করা হচ্ছে। ঠিক তার আগে আগেই বিশ্বজুড়ে এক সমীক্ষায় ধরা পড়েছে উদ্বেগজনক তথ্য। জানা গেছে, প্রতিদিন বিশ্বের ৫৪ শতাংশ মেয়ে বিনা অপরাধে নানারকম অপমানের শিকার হচ্ছেন স্যোশাল মিডিয়ায়। ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ- এইসব অনলাইন প্ল্যাটফর্মে মেয়েদের উত্তক্ত করার প্রবণতা ক্রমাগত বেড়েই চলেছে সর্বত্র।

    ২২টি দেশে সমীক্ষা চালিয়ে জানা গেছে, মেয়েদেরই সোশ্যাল মিডিয়ায় টার্গেট করা হয় বেশি। নানা রকম অশালীন কুপ্রস্তাব দেওয়া হয় তাদের। ইংল্যান্ডের হিউম্যানিটেরিয়ান অর্গানাইজেশন এই সমীক্ষার নাম দেন ‘স্টেট অফ দ্য ওয়ার্ল্ডস গার্লস রিপোর্ট’। ১৫ থেকে ২৫ বছরের ১৪ হাজার মেয়ের মধ্যে এই সমীক্ষা করা হয়। ভারত, ব্রাজিল, নাইজেরিয়া, স্পেন, অষ্ট্রেলিয়া, জাপান, থাইল্যান্ড, আমেরিকার মত দেশগুলিতে এই সমীক্ষা সবার আগে করা হয়। সমীক্ষা চলাকালীন মেয়েরা অকপটে জানিয়েছেন, কীভাবে বিনা অপরাধেই তাদের অপমানিত হতে হয় রোজ। শুধু সোশ্যাল মিডিয়ায় নয়, স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, কখনও বা কর্মক্ষেত্রেও নানা অপমানজনক ঘটনার সাক্ষী থাকেন মেয়েরা। কখনও গায়ের রং নিয়ে, কখনও বা পোশাক নিয়ে, কখনও আবার জাত ধর্ম নিয়ে শুনতে হয় বিরূপ মন্তব্য। কটুক্তি সহ্য করতে না পেরে অনেকে মানসিক ভাবে অসুস্থ হয়েও পরেছেন। একই সঙ্গে বেড়েছে অপমানের জ্বালায় আত্মহত্যা করার প্রবণতা। সমীক্ষায় তাঁরা জানান, এই আধুনিক যুগেও নিজেদের পছন্দ মত থাকার স্বাধীনতা নেই তাদের। নিজের মত প্রকাশ করারও স্বাধীনতা নেই। বিশেষ কিছু পোশাক পরলেই তাদের গায়ে লাগিয়ে দেওয়া হয় ‘নোংরা মেয়ে’ বিশেষণ। জাত ধর্ম নিয়ে বিরোধী মন্তব্য করলে মেরে ফেলার হুমকি পর্যন্ত জোটে। সন্ধের পর বেশিক্ষণ বাইরে থাকতে ভয় পান তারা। কারণ তারা মনে করেন এই যুগেও তাদের জন্য কোনও নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেই। সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘটনাটা যদিও আরও আলাদা। এখানে কিছু না বলে, না করেও মেয়েদের দিকে পদে পদে উড়ে আসে নানারকম কুপ্রস্তাব। সমাজ যে পোশাকগুলোকে সভ্য ভদ্র বলে দাগিয়ে দিয়েছে, এমনকি তেমন পোশাকে সেজে কোনও সুন্দর ছবি পোস্ট দিলেও অনেক সময় ভেসে আসে কুমন্তব্য, অশ্রাব্য গালিগালাজ। এই অশ্লীলতার প্রতিবাদে নারীবাদীরা গর্জেও ওঠেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেলেব্রিটি থেকে সাধারণ ঘরের মেয়ে, সকলেই এই অপমানের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন প্রতিদিন।

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং