19 C
Guwahati
Sunday, November 27, 2022
More

    সীমান্তে মিজো আগ্রাসন অব্যাহত, মুখ্যমন্ত্রীকে বিস্তারিত জানালেন রাতাবাড়ির বিধায়ক

    মনোজ মোহান্তি,  নিভিয়া

    করিমগঞ্জের অসম-মিজোরাম সীমান্তে অব্যাহত রয়েছে মিজো আগ্রাসন। উচ্ছেদ হওয়া জমিতে মিজোরামের আই আর ব্যাটেলিয়ন ক্যাম্প তৈরি করে পাহারাদারি অব্যাহত রেখেছে। পাশাপাশি মিজো নাগরিকরা আই আর ব্যাটেলিয়নের সুরক্ষা ব্যবস্থায় চেরাগি রেঞ্জের সিংলা সংরক্ষিত বনাঞ্চলের ওই এলাকায় যুদ্ধস্তরীয় তৎপরতায় বেশ কয়েকটি  ঘর নির্মাণ করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এস্কেভেটর দিয়ে মাটি কেটে ভিটা তৈরির কাজ চলছে বলে সূত্রের খবর। মঙ্গলবার বিকেলে সাংবাদিকদের একটি দল চেরাগির রেঞ্জ অফিসার যতীন্দ্রমোহন দাস ও রাতাবাড়ি থানার ওসি জয়ন্ত তেরাঙ সহ সশস্ত্র পুলিশ ও ফরেস্ট বাহিনী নিয়ে উচ্ছেদ এলাকা পরিদর্শনে বের হয়েও সংঘর্ষের আশঙ্কায় প্রকৃত স্থানে যেতে পারেন নি। এতেই অনুমেয় যে উচ্ছেদ স্থলে কি হারে মিজো আগ্রাসন চলছে। ইতিমধ্যে মিজোরাম বিধানসভার উপাধ্যক্ষ সহ মিজোরামের তিনজন বিধায়ক ওই এলাকা পরিদর্শন করে অঞ্চলটি তাদের বলে দাবি করে এক ইঞ্চি জমিও ছেড়ে না দেওয়ার হুঙ্কার দিয়ে গেছেন।

    এদিকে রাতাবাড়ির বিধায়ক বিজয় মালাকারও অসমের একচুল পরিমাণ ভূমি ছেড়ে দেওয়া হবে না বলে মত ব্যক্ত করেছেন। এ নিয়ে তিনি দিসপুরে মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়ালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। বিধায়ক মালাকার মুখ্যমন্ত্রী সোনোয়ালের সঙ্গে দীর্ঘ আলোচনা করে প্রকৃত অবস্থার বিষয়ে অবগত করেন। মুখ্যমন্ত্রী বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে নিয়েছেন বলে মালাকার জানিয়েছেন।  এদিকে করিমগঞ্জের জেলাশাসকও পুরো ঘটনা নিয়ে দিসপুরের সঙ্গে সম্পর্ক বজায় রেখে চলছেন। বিধায়ক মালাকারের সঙ্গে আলোচনার পর মুখ্যমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে করিমগঞ্জের জেলাশাসকের সঙ্গেও আলোচনা করে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিয়েছেন।

    অন্যদিকে, সীমা বিবাদের সমাধানের উদ্দেশ্যে বুবারই  মিজোরামের মামিতে করিমগঞ্জের জেলাশাসক এমপি অম্বামুদন ও মামিতের জেলাশাসক ডঃ লালরোজামা এক আলোচনায় মিলিত হচ্ছেন। এতে করিমগঞ্জের বন আধিকারিক জয়নাল আলি সহ বিভিন্ন পদস্থ আধিকারিকদেরও উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। জেলাশাসক স্তরের আলোচনার মাধ্যমে সীমা বিবাদের নিষ্পত্তি না হলে অসম সরকার বিকল্প পন্থা নিয়ে চিন্তা ভাবনা করবে বলে দিসপুর থেকে জানিয়েছেন বিধায়ক বিজয় মালাকার। এদিকে উচ্ছেদ স্থলে মিজোরামের একতরফা আধিপত্যকে ঘিরে প্রবল সুরক্ষাহীনতায় ভুগছেন মিজোরাম সীমান্তের অসমের এলাকার উপজাতি গ্রামের একাংশ বাসিন্দা। শীঘ্রই বিতর্কের অবসান না হলে মিজো আগ্রাসন আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা ব্যক্ত করেছেন চেরাগির রেঞ্জ অফিসার যতীন্দ্রমোহন দাসও। এতে ছারখার হয়ে যাবে সংরক্ষিত বনাঞ্চল ।

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং