21 C
Guwahati
Thursday, December 2, 2021
More

    শুধু হিন্দি ও ইংরেজিতে নয়, ২২টি সরকারি ভাষায় প্রকাশ করতে হবে সরকারি বিজ্ঞপ্তি : সুপ্রিমকোর্ট

    নয়াদিল্লি: ভারত সরকারের বেশিরভাগ সরকারি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয় শুধু হিন্দি এবং ইংরাজি ভাষায়।১৯৬৩ সালের এই নিয়মের বিরুদ্ধে এবার প্রশ্ন তুলল সুপ্রিম কোর্ট। সম্প্রতি দেশের শীর্ষ আদালত কেন্দ্রীয় সরকারকে ১৯৬৩ সালের সরকারি ভাষা আইনে বদল আনার নির্দেশ দিয়েছে। ১৯৬৩ সালের এই আইনে স্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে, সরকারি বিজ্ঞপ্তি শুধু হিন্দি এবং ইংরাজিতেই প্রকাশিত হবে।আর এই আইন ঘিরেই তৈরি হয়েছিল দোলাচল।দেশে ২২টি সরকারি ভাষা থাকার পরেও কেন এমন পক্ষপাতিত্ব, সেই বিষয়েই চলছিল জল্পনা। সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদে জানিয়েছেন, ১৯৬৩ সালের আইনে বদল আনার সময় এসেছে এবার। সুপ্রিম কোর্টেও বিচারপদ্ধতি বা রায় ঘোষণার সময় বিভিন্ন ভাষায় সেটা অনুবাদ করা হয়। ভাষান্তরের জন্য ব্যবহৃত হয় অনুবাদক। সেখানে সারা দেশের মানুষের জন্য সকারি বিজ্ঞপ্তির ক্ষেত্রেও এমনই পন্থা নেওয়া উচিত।

    এই বিতর্কের সূত্রপাত হয় ‘এনভায়রনমেন্ট ইম্প্যাক্ট অ্যাসেসমেন্ট’-এর বিজ্ঞপ্তি ঘিরেই। হিন্দি ও ইংরাজিতে এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করায় পরিবেশবিদ বিক্রম টোঙ্গার সমস্ত ভাষায় এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের জন্য আদালতে আবেদন করেছিলেন। এই আবেদনে সাক্ষর করেন দেশের বহু পরিবেশবিদ এবং সচেতন ব্যক্তিত্বগণ। বিক্রম অভিযোগ করেন, ইচ্ছাকৃতভাবে কেন্দ্র সরকার কেবলমাত্র দুটি ভাষাতেই প্রকাশ করেছে এই বিজ্ঞপ্তি। সেই মামলাই দিল্লি হাইকোর্ট ঘুরে পৌঁছায় দেশের সর্বোচ্চ আলাদতে। এ মামলায় দিল্লি হাইকোর্টও একই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিল। ২২টি স্বীকৃত ভাষাতেই এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের আদেশ দেয়। কিন্তু কেন্দ্র সরকার এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আবেদন করে। সেখানেও খারিজ হয়ে যায় সরকারি আবেদন। এর আগে গত ৫ আগস্ট কর্ণাটক হাইকোর্টও পরিবেশমন্ত্রীর এই  বিজ্ঞপ্তি কন্নড় ভাষায় প্রকাশ না করার জন্য প্রশ্ন তুলেছিল। বাতিল করেছিল বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ। প্রধান বিচারপতি বোবদে এদিন সাফ জানিয়ে দেন, মহারাষ্ট্র কিংবা তামিলনাড়ু বা কর্ণাটকের অধিকাংশ মানুষই হিন্দি বোঝেন না। ফলে কেবলমাত্র হিন্দি এবং ইংরাজিতে এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ একপ্রকার অর্থহীন। দেশের সমস্ত ভাষাতেই সব সরকারি বিজ্ঞপ্তি ঘোষণা করা উচিত। তা সম্ভব না হলে অন্তত সরকারি ২২টি ভাষায় তা অনুবাদ করার নির্দেশ দেন প্রধান বিচারপতি।

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং