26 C
Guwahati
Friday, October 7, 2022
More

    শান্তির পথে আলফা? কেন্দ্রের কোর্টেই বল ঠেললেন পরেশ বরুয়া

    গুয়াহাটি, ২৩ মে : শান্তির পথে আলফা? কেন্দ্রের কোর্টেই বল ঠেললেন পরেশ বরুয়া

    সমাজের মূলস্রোতে কী ফিরে আসছে  আলফা স্বাধীন? ৪১ বছরের রক্তক্ষয়ী অধ্যায়ের কী সমাপ্তি ঘটতে চলেছে? জল্পনা বাড়িয়ে দিয়েছেন খোদ আলফা স্বাধীনের স্বঘোষিত সেনাপ্রধান পরেশ বরুয়া নিজেই। শনিবার ওএনজিসির অপহৃত কর্মচারী রিতুল শইকিয়াকে মুক্তি দিয়ে তিনি বলেছেন, ‘আমরা আমাদের কথা রেখেছি, এবার কেন্দ্র সরকারের পালা। দেখা যাক কোন পথে এগোয় সরকার।’ 

    ঈঙ্গিত স্পষ্ট। হিমন্ত ম্যাজিকে শেষপর্যন্ত বোধহয় শান্তির পথে ই ফিরে আসছে আলফা স্বাধীন! শনিবার সকাল সাতটা নাগাদ ইন্দো-মায়ানমারের সীমান্তে মন জেলার লংয়ায় রিতুল শইকিয়াকে মুক্তি দেয় আলফা। এর আগে বৃহস্পতিবার রিতুলের মুক্তি এবং সশস্ত্র আন্দোলনের পথ পরিহার করে শান্তিপূর্ণ সমাধানের পথ প্রশস্ত করার জন্য আলফা স্বাধীনকে আহবান জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মা।

    এদিন রিতুলকে মুক্তি দিয়ে সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে ফোনে কথাবলেন আলফা প্রধান পরেশ বরুয়া। কোনও রাখঢাক না রেখে তিনি বলেন, ‘বল এখন কেন্দ্র সরকারের কোর্টে। আমরা রিতুল শইকিয়াকে মুক্তি দিয়েছি। এখন সরকারের প্রতিক্রিয়া  কী , সেটাই দেখার। সরকার যদি  ৪১ বছরের সশস্ত্র আন্দোলনের সমাধানের পথ তৈরি করতে চায়, তবে তাদের এগিয়ে আসা উচিত।’

    এর আগে, মুখ্যমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব বলেছিলেন যে, ‘রাজ্যে তেল ও জ্বালানি খাতে স্থানীয় যুবকদের চাকরি সংরক্ষণের দাবি এবং প্রাকৃতিক সম্পদের উপর আদিবাসীদের অধিকার রক্ষার জন্য শান্তিপূর্ণ সংলাপের মাধ্যমে সমাধান করা যেতে পারে। উল্লেখ করে ছিলেন, তেল সংস্থাগুলিকে বোঝাতে রাজ্য সরকার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে।

    এদিকে, আলফা প্রধান পরেশ বরুয়া বলেছেন, ‘আমরা কখনও আলোচনা প্রত্যাখ্যান করিনি। তবে আমাদের সংগঠন অসমের ইতিহাস এবং এর জনগণের অধিকারকে স্বীকৃতি দেওয়া উচিত বলেই মনে করে। আমরা আশা করছি, নবনিযুক্ত মুখ্যমন্ত্রী দিল্লিকে বোঝাতে পারবেন।’ 

    আলফা সুপ্রিমো এ-ও বলেন, নয়া মুখ্যমন্ত্রী আমাদের  অস্থায়ী যুদ্ধবিরতির সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে এবং রাজ্যের আদিবাসীদের অধিকার সংরক্ষণের সংগঠনের দাবি স্বীকার করেছেন। এতে তিনি আশার আলো দেখছেন।

    আরো দেখুন : তিন রাজ্যের জন্য ৩০০ অক্সিজেন সিলিণ্ডার নিয়ে বিশেষ বিমান শিলচরে

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং