14.1 C
Guwahati
Thursday, January 27, 2022
More

    ‘বিদেশি’ দুলাল পালের মৃত্যু এবং সরকারের ভূমিকা…

    গতবছর ১৩ অক্টোবর আসাম-এর ডিটেনশন ক্যাম্পে বন্দি থাকা অবস্থায় শোনিতপুর জেলার আলিশিঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা দুলালচন্দ্র পালের মৃত্যু হলে তার পরিবার মৃতদেহ নিতে অস্বীকার করে। তাদের দাবি ছিল, দুলাল পালকে যেহেতু বিদেশি বলে চিহ্নিত করা হয়েছিল তাই তাঁর মরদেহ সেই দেশেই সৎকারের ব্যবস্থা করা হোক। পরিবারের পক্ষ থেকে এ ধরনের দাবি উত্থাপন হওয়াতে তখন রাজ্য সরকার চরম অস্বস্তিতে পড়ে যায়। সিআরপিসি, আসাম-এর পক্ষ থেকেও তখন দুলাল পালের মর্মান্তিক মৃত্যুর পর  তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে নেওয়া অবস্থানকে পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে তাঁর প্রতি ন্যায়বিচার ও রাজ্যের সমস্ত অমানবিক ডিটেনশন ক্যাম্প বন্ধ করার জোরালো দাবি উত্থাপন করা হয়েছিল। সরকারের পক্ষ থেকে তখন দুলাল পালের পরিবারের সদস্যদের মধ্যে একজনকে সরকারি চাকরি প্রদান সহ নানা ধরনের সুবিধা প্রদানের আশ্বাস প্রদান ও প্রবল প্রসাশনিক চাপ সৃষ্টি করে শেষ পর্যন্ত দীর্ঘ ১০ দিন পর পরিবারকে মরদেহ সমঝে নিতে বাধ্য করা হয়েছিল। ঘটনার প্রায় একবছর পূর্ণ হতে চললেও সরকারের পক্ষ থেকে পরিবারের কাউকে সরকারি চাকরি  প্রদান করা হয়নি। এই অবস্থায় কয়েকদিন আগে দুলাল পালের এক ছেলে শাসক দলের স্থানীয় বিধায়কের কাছে সরকারি চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতির বিষয়ে জানতে গেলে তাকে উল্টো শারীরিক ভাবে নিগ্রহ করা হয় বলে অভিযোগ। ঘটনার খবর দেরিতে হলেও সিআরপিসিসি, আসাম-এর সদস্যদের কাছে পৌঁছলে সঙ্গে সঙ্গে দুলাল পালের ছেলের সঙ্গে  টেলিফোনে যোগাযোগ করা হয়। আলোচনা কালে তাঁর বড় ছেলে এ অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করেন। এই ঘটনা শোনার পর সিআরপিসিসি-র পক্ষ থেকে তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করে শাসক দলের জঘন্য প্রতারণা ও ন্যাক্কারজনক ভূমিকার তীব্র সমালোচনা করা হয়। সংগঠন বলেছে, এই সরকার ভাষিক সংখ্যালঘুদের ত্রাতা সাজার ভূমিকা করলেও ভেতরে ভেতরে উগ্র-প্রাদেশিকতাবাদিদের দোসর হয়ে কাজ করছে। এই ঘটনা প্রমাণ করে যে গতবছর দুলাল পালের পরিবারের সদস্যদের দেওয়া প্রতিশ্রুতি সম্পূর্ণ মিথ্যা ছিল। সংগঠনের পক্ষ থেকে সরকারের  প্রতিশ্রুতি মতো দুলাল পালের পরিবারের একজন সদস্যকে সরকারি চাকরি ও অন্যান্য সুবিধা প্রদান এবং রাজ্যের অমানবিক ডিটেনশন ক্যাম্প অবিলম্বে তুলে দেওয়ার জোরালো দাবি উত্থাপন করা হয়। কিন্তু সরকার কী শুনবে এ সব কথা? এটাই বড় প্রশ্ন।

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং