27 C
Guwahati
Monday, October 3, 2022
More

    বাংলাদেশে ইলিশ উৎপাদনে অতীতের রেকর্ড ছাড়িয়েছে

    ঢাকা, ৩০ নভেম্বরঃ বাংলাদেশের জাতীয় মাছ ইলিশ। আর এই ইলিশ শব্দটি উচ্চারণের সঙ্গে সঙ্গে চোখের সামনে ভেসে ওঠে পদ্মার রূপালী ইলিশের চকচকে ছবি। রসনায় ও পুষ্টিগুণে ভরপুর ইলিশ বাংলাদেশের মৎস্যখাতের অন্যতম ফসল। ইলিশের পাশাপাশি সাদু জলের মাছের উৎপাদনও বেড়েছে। ইলিশ উৎপাদনের সর্বশেষ তথ্যে অতীতের সকল রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। রবিবার থেকে শীত ফিরবে তার চেনা মেজাজে এমন বার্তা দিয়ে আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছিল,  এদিন থেকে বলা যায় শীতের অভিষেক ঘটেছে। ঢাকার শেষ প্রান্তের জেলাটির নাম মুন্সিগঞ্জ। এটি পদ্মার তীরে। জলের সঙ্গে মানুষের আত্মিকযোগ সে কারণেই গভীর।

    এবারে প্রথম বারের মতো পদ্মাতীরে আয়োজন করা হলো ইলিশ উৎসবের। মাছ বিক্রি থেকে শুরু করে প্রতিটি স্টলে ছিল নানা পদের রান্না ইলিশ। শীতমেজাজে পদ্মাতীরে হাওয়াটা ছিল বেশ বাড়তিই। সূর্য্য অনেকটা গোমড়ামুখো। তাই উৎসুখ মানুষের আগমন ঠেকানো যায়নি উৎসব প্রিয় বাঙালিকে। স্টলে স্টলে শোভা পাচ্ছিল সর্ষে ইলিশ, ভাপা ইলিশ, ইলিশ পাতুরিসহ ইলিশের নানা রকম রেসিপি। মাওয়া ফেরিঘাটের কাছাকাছি বিশাল চত্বর জুড়ে আয়োজিত মেলায় ছিল উৎসব আমেজ। বাঙালির ইতিহাস-ঐতিহ্যের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে রূপালী ইলিশ। ইলিশ থেকে ঘরে আসছে বৈদেশিক মুদ্রা।

    জাতীয় সম্পদ ইলিশ রক্ষায় ক্রেতা-বিক্রেতাদের মাঝে জনসচেতনতার লক্ষ্যেই এ ইলিশ উৎসবের আয়োজন করা হয়। ‘নিয়ম মেনে ইলিশ ধরি, সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে চলি’ এই স্লোগানকে ধারণ করে মুন্সীগঞ্জে প্রথম বারের মতো ইলিশ উৎসব সম্পন্ন হল। ব্যাংক এশিয়ার স্পনসরে প্রজন্ম বিক্রমপুর নামের সংগঠনটি বিআইডাব্লিউটিএর মাঠে এ উৎসবের আয়োজন করে। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শেষ হয় ইলিশ উৎসব।

    এদিন এক থেকে দেড় কেজি ওজনের ইলিশ বিক্রি হয়েছে ১১শ’ টাকা কেজি ধরে। অতীতের সকল রেকর্ড ভেঙ্গে ইলিশ উৎপাদন বেড়েছে বাংলাদেশে। বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএফআরআই) প্রতিষ্ঠানটির গবেষণায় বলা হয়েছে, চলতি বছর ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে শতকরা ৫১ দশমিক ২ ভাগ মা-ইলিশ সম্পূর্ণভাবে ডিম দিয়েছে। যা অতীতের সব রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেছে। চলতি বছর প্রজনন মৌসুমে গত ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ ছিল। এ সময়ে মা-ইলিশের ডিম ছাড়ার পরিমাণ ৭ লাখ ৫৭ হাজার ৬৫ কেজি। এর শতকরা ৫০ ভাগ হ্যাচিং ধরে এবং তার শতকরা ১০ ভাগ বাঁচার হার ধরে এ বছর প্রায় ৩৮ হাজার কোটি জাটকা ইলিশ পরিবারে যুক্ত হয়েছে। যা গতবারের চেয়ে ১ হাজার কোটি বেশি। আর গত বছর ইলিশের প্রজনন সফলতা ছিল ৪৮ দশমিক ৯২ শতাংশ। বিএফআরআই বলেছে, যেহেতু এ বছর ইলিশের প্রজনন সফলতা রেকর্ড গড়েছে। তাই স্বাভাবিকভাবেই আগামী মৌসুমে ইলিশের উৎপাদন আরও বাড়বে বলে আশা প্রতিষ্ঠানটির। গবেষণায় দেখা যায়, প্রজনন মৌসুমের ২২ দিন সব প্রকার মাছ ধরা নিষিদ্ধ থাকায় প্রজন অঞ্চলে স্ত্রী ইলিশের শতকরা হার ৮৮ থেকে ১০০ ভাগ পর্যন্ত বেড়েছে।

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং