28 C
Guwahati
Tuesday, October 4, 2022
More

    বাংলাদেশের বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক ও সাংবাদিক রাহাত খান প্রয়াত

    ঢাকা, ২৯ আগস্টঃ বাংলাদেশের বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক ও সাংবাদিক রাহাত খান মারা গেছেন। তিনি ডায়বেটিস সহ নানারকম বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপত আটতায় আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টায় নিজ বাড়িতেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন রাহাত খান।তাঁর শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী শনিবার মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাঁকে সমাহিত করা হয়। প্রয়াতের স্ত্রী অপর্ণা খান নিজের ফেসবুক প্রোফাইলেও রাহাত খানের মৃত্যুর খবর জানিয়েছেন।

    গত ২০ জুলাই রাহাত খানকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর আগের দিন বাসায় খাট থেকে নামতে গিয়ে কোমরে ব্যথা পান তিনি। এরপর চিকিত্‍সকের পরামর্শে এক্স-রে করা হলে পাঁজরে গভীর ক্ষত ধরা পড়ে। এর পাশাপাশি তার শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে জরুরি ভিত্তিতে তাকে বারডেম হাসপাতালের আইসিউতে ভর্তি করা হয়।দীর্ঘদিন ধরে হৃদরোগ, কিডনি, ডায়াবেটিস সহ বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন তিনি। যার জন্য তার চিকিত্‍সা প্রক্রিয়াটা জটিল হয়ে পড়ায় সার্জারি করা যাচ্ছিল না। রাহাত খানের স্ত্রী অপর্ণা এর আগে জানিয়েছিলেন, চিকিত্‍সকেরা ২৯ জুলাই তাদের জানিয়ে দেন হাসপাতালে থেকে কোনও লাভ হবে না। ডায়েবেটিস, কিডনি, হার্টে সমস্যা থাকার কারণে কোনও সার্জারি করা যাবে না। এজন্য বাসায় নিয়ে আসা হয়। এরপর থেকে সারাক্ষণ বিছানায় শুয়ে থাকতে হয় রাহাত খানকে।

    রাহাত খান বাংলাদেশের একজন খ্যাতিমান কথাশিল্পী। ছোটগল্প ও উপন্যাস উভয় শাখাতেই তার অবদান উল্লেখযোগ্য। সাংবাদিক হিসেবেও রাহাত খানের অবদান উল্লেখযোগ্য। দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় তিনি ষাটের দশক থেকে কর্মরত। তিনি দৈনিক ইত্তেফাকের সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করেছেন। তিনি ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রদত্ত দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত হন। বিখ্যাত সিরিজ মাসুদ রানার রাহাত খান চরিত্রটি তার অনুসরণেই তৈরি করা হয়।তিনি ১৯৪০ সালের ১৯ ডিসেম্বর কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলার পূর্ব জাওয়ার গ্রামের খান পরিবারের জন্মগ্রহণ করেন। কথা সাহিত্যিক হিসেবে সমাদৃত হলেও কর্মসূত্রে রাহাত খান আপাদমস্তক সাংবাদিক।রাহাত খান ইতিমধ্যে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার (১৯৭৩), সুহৃদ সাহিত্য পুরস্কার (১৯৭৫), সুফী মোতাহার হোসেন পুরস্কার (১৯৭৯), আবুল মনসুর আহমদ স্মৃতি পুরস্কার (১৯৮০), হুমায়ুন কাদির স্মৃতি পুরস্কার (১৯৮২), ত্রয়ী সাহিত্য পুরস্কার (১৯৮৮) এবং দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় একুশে পদক (১৯৯৬) পেয়েছেন।তাঁর মৃত্যুতে বাংলাদেশের সাহিত্য ও সাংবাদিকতার জগতে শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছে।

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং