27 C
Guwahati
Sunday, October 2, 2022
More

    ফের ধাক্কা কংগ্রেসে, মারণ করোনায় এবার প্রয়াত রাজ্যসভার সাংসদ আহমেদ প্যাটেল

    নয়াদিল্লি, ২৫ নভেম্বর : ফের ধাক্কা কংগ্রেসে। মারণ করোনায় এবার প্রাণ কেড়ে নিল কংগ্রেসের বর্ষীয়ান নেতা এবং রাজ্যসভার সাংসদ আহমেদ প্যাটেলকে । বুধবার ভোর সাড়ে ৩টে নাগাদ দিল্লির এক হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি । বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে তিনি করোনার ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। তাঁর পর থেকেই তাঁর শারীরিক অবস্থার দ্রুত অবনতি হচ্ছিল । এরপরই বুধবার ভোরে আহমেদ প্যাটেলের মৃত্যু সংবাদ আসে ।

    আহমদ প্যাটেলের পুত্র ফয়সাল প্যাটেল টুইট করে জানিয়েছেন, ‘আমার বাবা, আহমেদ প্যাটেলের অকাল মৃত্যুতে আমরা অত্যন্ত দুঃখিত। এক মাস আগে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরে, একাধিক অঙ্গ বিকল হওয়ার কারণে তাঁর স্বাস্থ্য আরও খারাপ হয়েছিল। বাবার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাতে সকলেই যেন করোনা বিধি অনুসরণ করেন, এটাই অনুরোধ রাখছি।’

    আহমেদ প্যাটেলের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই দেশের রাজনৈতিক মহলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। কংগ্রেস সভাপতি সোনিয়া গান্ধী বলেছেন, ‘একজন বিশ্বস্ত সহকর্মী এবং বন্ধুকে হারালাম। এটা ক্ষতি অপূরণীয়।’ শোকবার্তায় সোনিয়া জানান, ‘আমি এমন একজন সহকর্মীকে আজ হারালাম, যিনি নিজের গোটা জীবনটা কংগ্রেস পার্টিকেই উৎসর্গ করেছেন । বিশ্বস্ত, নিজের কাজের প্রতি দায়বদ্ধ । সর্বদা যে কোনও বিষয়ে সাহায্য করতে প্রস্তুত থাকতেন । তাঁর উদার মনোভাবের জন্যই বাকিদের থেকে তিনি আলাদা । বিশ্বস্ত সহকর্মী এবং বন্ধুকে হারালাম। এই ক্ষতি অপূরণীয়। ওঁর পরিবারকে সমবেদনা জানাই ।’

    সোনিয়া গান্ধী ও গুলাম নবি আজাদের সঙ্গে আহমেদ প্যাটেল। (ফাইল ছবি)

    বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেলের মৃত্যুতে গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মৃত্যুর খবর পেয়ে এদিন তাঁর ছেলে ফয়সালের সঙ্গে কথা বলেন মোদি। আহমেদ প্যাটেলের আত্মার শান্তি কামনা করেছেন তিনি। শোকবার্তায় তিনি লেখেন, ‘দীর্ঘদিন সমাজের কল্যাণে এবং সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করেছেন আহমেদ প্যাটেল। তীক্ষ্ণ বুদ্ধি ছিল তাঁর এবং কংগ্রেসের সাংগঠনিক শক্তিকে মজবুত করতে তাঁর ভূমিকা ছিল অসীম। তাঁর মৃত্যুতে খুবই দুঃখিত। আহমেদ ভাইয়ের আত্মার শান্তি কামনা করি।’

    আটবারের সাংসদ আহমেদ প্যাটেল লোকসভায় তিনবার এবং রাজ্যসভায় পাঁচবার মেয়াদ শেষ করেছেন। ২০১৮ সালের আগস্টে অল ইন্ডিয়া কংগ্রেস কমিটির কোষাধ্যক্ষ হিসাবে নিযুক্ত হন। ১৯৭৬ সালে আহমেদ প্যাটেল গুজরাটের ভরচ জেলাতে স্থানীয় সংস্থা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে রাজনৈতিক জীবন শুরু করেছিলেন। পরে তিনি গুজরাট এবং কেন্দ্রের কংগ্রেসের সাংগঠনিক দায়িত্ব পালন করেছিলেন। ১৯৮৫ সালে তিনি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর সংসদের সচিব হিসাবে নিযুক্ত হন। আহমেদ প্যাটেল সর্দার সরোবর প্রকল্পের তদারকি করার জন্য নর্মদা ম্যানেজমেন্ট কর্তৃপক্ষ স্থাপনেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন। অসমের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈর প্রয়াণে যখন গোটা রাজ্য শোকে কাতর, ঠিক তখন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় নেতা আহমেদ প্যাটেলের মৃত্যু সংবাদে জোড়া ধাক্কা লেগেছে। রাজনৈতিক মহলে গভীর শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং