26 C
Guwahati
Wednesday, October 5, 2022
More

    নিরাপত্তার নমুনা : মেডিক্যাল ও সিভিল থেকে পালিয়ে গেলেন ২ করোনা রোগী

    শিলচর, ২৭ মে : শিলচর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও সতীন্দ্র মোহন দেব সিভিল হাসপাতাল থেকে বুধবার পালালেন দু’জন করোনা রোগী। একইদিনে দুই হাসপাতাল থেকে দুজন করোনা রোগীর পলায়নকে ঘিরে হাসপাতাল দুটির কোভিড ওয়ার্ডের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঘিরে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। মেডিক্যাল থেকে পলাতক শহরতলি মজুমদার বাজার কাশিপুর এলাকার বাসিন্দা শিবু দেবনাথ (৪৭)কে অবশ্য পরবর্তীতে পুলিশ সহযোগে তার বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে আসা হয়েছে। তবে সিভিল হাসপাতাল থেকে পলাতক শহর সংলগ্ন বেরেঙ্গা দ্বিতীয় খন্ডের বাসিন্দা হোসেন আহমদ (৩২)-এর এখনও সন্ধান মেলেনি।

    জানা গেছে, শিবু দেবনাথকে মেডিক্যালে ভর্তি করানো হয়েছিল গত ২৪ মে। কোভিড ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার বেলা এগারোটা নাগাদ তিনি পালিয়ে যান। ওয়ার্ডে রোগী নেই, তা নজরে পড়ার পর খবর দেওয়া হয় পুলিশকে। এতে খোঁজখবর চালিয়ে পুলিশ স্বাস্থ্যকর্মীদের নিয়ে বিকেলের দিকে তাকে তার বাড়ি থেকে ধরে মেডিক্যালে ফিরিয়ে নিয়ে যায়। শিবু দেবনাথকে যখন বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয় তখন তার অক্সিজেনের মাত্রা ছিল ৮১ শতাংশ। যার দরুন শ্বাসকষ্টে ভোগে তিনি ঠিকমতো কথা বলতে পারছিলেন না।

    তাঁর পত্নী জানিয়েছেন, গত ৭-৮ দিন থেকে শিবু শ্বাসকষ্ট সহ অন্যান্য কিছু সমস্যায় ভুগছিলেন। ওষুধ-পত্র খাইয়েও কাজ হয়নি। এরপর গত ২৪ মে নমুনা পরীক্ষার জন্য তাকে নিয়ে যান শিলচরের এক বেসরকারি পরীক্ষাগারে। সেখানে আরটিপিসিআর টেস্টের জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়। সঙ্গে সঙ্গে নমুনা পরীক্ষার ফল জানা না গেলেও তবে শরীরের হাল দেখে পরীক্ষাগারের কর্মীরা সঙ্গে সঙ্গে তাকে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেন। এতে ওই দিনই নিয়ে যাওয়া হয় মেডিক্যালে। তবে মেডিক্যালে র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন পরীক্ষা করা হলে ফল আসে নেগেটিভ। তখন চিকিৎসার জন্য তাকে ভর্তি করানো হয় মেডিসিন বিভাগে। তবে বেসরকারি পরীক্ষাগারে আরটিপিসি আর টেস্টের জন্য  যে নমুনা দেওয়া হয়েছিল গতকাল মঙ্গলবার আসে তার রিপোর্ট। এতে দেখা যায় তিনি পজিটিভ। একথা মেডিক্যাল কর্তৃপক্ষকে জানালে সঙ্গে সঙ্গেই মেডিসিন বিভাগ থেকে তাকে স্থানান্তরিত করা হয় কোভিড ওয়ার্ডে। এসবের মাঝে এ দিন দুপুরের দিকে তিনি ছেলেকে ফোন করে জানান, মেডিক্যাল থেকে তাকে রিলিজ দেওয়া হয়েছে। তিনি রয়েছেন মেডিকেলের সামনে। এই খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ছেলে ছুটে যায় সেখানে। তবে বাবার সন্ধান পায়নি সে। ইতিমধ্যে তিনি একা একা অটোয় চড়ে বাড়িতে পৌঁছে যান। পত্নীর কথায়, তিনি যে মেডিক্যাল থেকে পালিয়ে এসেছেন, তা তিনি বুঝতে পারেন নি। কারণ তিনি বলেছিলেন তাকে রিলিজ করা হয়েছে। পুলিশ সহ স্বাস্থ্যকর্মীরা বাড়ীতে পৌঁছার পর তিনি বুঝতে পারেন ব্যাপারটা।

    সিভিল হাসপাতাল থেকে পলাতক হোসেন আহমেদ সম্পর্কে জানা গেছে, তাকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করানো হয়েছিল গতকাল মঙ্গলবার রাতে। এদিন দুপুর ১টা নাগাদ তিনি পালিয়ে যান। পুলিশ তার খুজে বেরেঙ্গা দ্বিতীয় খন্ডের বাড়ি সহ অন্যত্র তল্লাশি চালালেও তাকে পাওয়া যায়নি।

    আরো দেখুন : সংক্রমণ কিছুটা কমলেও শিলচরে একদিনে ১২ করোনা রোগীর মৃত্যু

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং