19 C
Guwahati
Thursday, December 8, 2022
More

    জনপ্রতিনিধিদের ‘জি হুজুর’ মানসিকতাই কর্মপ্রার্থীদের জীবনে অমানিশা ডেকে আনছে: বিডিএফ

    শিলচর, ২৮ জানুয়ারি : জনপ্রতিনিধিদের ‘জি হুজুর’ মানসিকতাই কর্মপ্রার্থীদের জীবনে অমানিশা ডেকে আনছে: বিডিএফ : আসাম স্টেট রুরাল লাইভলিহুড মিশন-এর অধীন ৭৮টি পদে নিয়োগের জন্য লিখিত পরীক্ষা হয়েছিল গত নভেম্বর মাসে। এরমধ্যে ৪৫টি পদ ছিল বরাকের। সম্প্রতি প্রকাশিত ফলাফল থেকে জানা যায়, এই তালিকায় বরাকের একজনও প্রার্থী নেই। এই ব্যাপারে ফের সরব হয়েছে বরাক ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট। দলের অস্থায়ী কার্যালয়ে আহুত এক সভায় এ নিয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিডিএফ সদস্যরা এই পুরো ব্যাপারের জন্য ধিক্কার জানান বর্তমান রাজ্য সরকারকে। তাদের বক্তব্য, মুখ্যমন্ত্রী শুধু মুখেই বরাক ব্রহ্মপুত্র পাহাড় ভৈয়াম-এর সমন্বয়ের কথা বলেন। কার্যক্ষেত্রে তা একফোঁটাও পালিত হয় না। ক্ষোভ প্রকাশ করে বিডিএফ সদস্য জয়দীপ ভট্টাচার্য বলেন,  বরাকের যে ৪৫টি পদে ব্রহ্মপুত্র উপত্যাকার প্রার্থীরা এসে যোগ দেবেন তার মধ্যে অনেক তৃতীয় শ্রেণির পদও রয়েছে। কোথায় গেল ভোটের আগে দেওয়া সরকারের প্রতিশ্রুতি? যাতে বলা হয়েছিল যে এই উপত্যাকার সমস্ত তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির পদ স্থানীয়   প্রার্থীদের দিয়ে পূরণ করা হবে?

    তিনি আরও বলেন, এটা বিশ্বাস করা মুশকিল যে বরাকের প্রার্থীদের মেধা এবং ধীশক্তি এতটাই কম যে একটি পদের জন্যও তারা প্রয়োজনীয় মার্কস পেতে অক্ষম হয়েছেন। পুরো প্রক্রিয়ায় চক্রান্তের গন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। সরকার বরাকের সব প্রার্থীদের মার্কশিট জনসমক্ষে প্রকাশ করার দাবি জানানো হয়েছে।

    জনপ্রতিনিধিদের 'জি হুজুর' মানসিকতাই কর্মপ্রার্থীদের জীবনে অমানিশা ডেকে আনছে: বিডিএফ

    বিডিএফ আহ্বায়ক পার্থ দাস ও জহর তারণ বলেন, সম্প্রতি রাজ্যস্তরে যত নিয়োগ হয়েছে তাতে বরাকের প্রার্থীদের প্রতি বৈষম্যের ছবি স্পষ্ট। ৫০০০ টেট শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে বরাকের বেকারদের ভাগ্যে জুটেছে মাত্র ২৫টি পদ। যেখানে জেলাওয়াড়ি আনুপাতিক হিসেবে বরাকের প্রার্থীদের ৮০০ পদে নিয়োগের কথা। একইভাবে নার্সের রাজ্যভিত্তিক ৩০০ পদে বরাক থেকে নিযুক্তি পেয়েছেন মাত্র ১৫ জন। কৃষি বিভাগের ১৬৭টি পদের একটিও জোটেনি বরাকের কর্মপ্রার্থীদের ভাগ্যে।

    তারা বলেন, বরাকের অকর্মণ্য সাংসদ-বিধায়কদের এসব নিয়ে কোনও চিন্তা নেই। নাহলে তাঁরা একজোট হয়ে এই ব্যাপারে সরকারের উপর অবশ্যই চাপ সৃষ্টি করতে পারতেন। তাদের ‘জি হুজুর’ মানসিকতাই বরাকের কর্মপ্রার্থীদের জীবনে অমানিশা ডেকে আনছে। বরাক ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট এর যুবা সদস্য কল্পার্ণব গুপ্ত বলেন, অন্যায়কে সহ্য করা এক ধরনের পাপ। তাই বরাকের কর্মপ্রার্থীদের ঘরে বসে থাকলে চলবে না। এসবের প্রতিবাদে পথে নামতে হবে। বিডিএফ সর্বতোভাবে এই ইস্যুতে তাদের পাশে থাকবে বলে জানানো হয়।

    আরো দেখুন : ফের সাইবার ক্রাইম, শিক্ষিকার অ্যাকাউন্ট থেকে উধাও ৫ লক্ষ

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং