28 C
Guwahati
Wednesday, October 27, 2021
More

    এবার লরি ছিনতাইর অপচেষ্টা, করিমগঞ্জ পুলিশের জালে উত্তরপ্রদেশের চার

    শিলচর, ১৯ এপ্রিল : অপরাধের মাত্রা দিন দিন বাড়ছে। অপরাধীরাও আধুনিক হচ্ছে। বাড়ছে সাহস। এবার লরি ছিনতাই করতে গিয়ে পুলিশের জালে ধরা পড়ল উত্তর প্রদেশের চার চালক। রবিবার রাত ১১টা নাগাদ গুয়াহাটি থেকে ত্রিপুরাগামী হরলিক্স বোঝাই এএস০১ এলসি ৫১৪৬ নম্বরের লরিটি ছিনতাই করতে চালক ও খালাসিকে মারপিট করে তাদের লরিতে তুলে নিয়ে যাওয়ার পথে বদরপুর পুলিশে ধরা পড়ে যায়।

    জানা গেছে, নিলামবাজার এলাকায় ত্রিপুরাগামী লরিটি বন্ধ করে ইউপি লরির ছয়জন চালক ও খালাসি। এরপর ত্রিপুরাগামী লরির চালক ও খালাসিকে বেধড়ক মারপিট করে হাত, পা ও মুখ বেধে তাদের নিজেদের লরিতে তুলে তিনজন রওয়ানা দেয়। বাকি তিনজন হরলিক্স বোঝাই লরিটি ছিনতাইর জন্য নিয়ে যায়। এদিকে চালকদের চিৎকার ও হৈ-হল্লা শুনে স্থানীয় মানুষ বের হলে দু’জন পালিয়ে গেলেও একজনকে ধরতে সক্ষম হন। পরে স্থানীয় মানুষ ওই ব্যক্তিকে পুলিশে সমঝে দেন। নিলামবাজার পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পারে ত্রিপুরাগামী গাড়ির চালক ও খালাসিকে অন্য এক লরিতে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ করিমগঞ্জ জেলার সবক’টি থানায় জানিয়ে দেয়।

    পুলিশের এ খবর পেয়ে বদরপুর পুলিশ নাকা চেকিঙ শুরু করে। সাড়ে এগারোটা নাগাদ বদরপুর পুলিশ নম্বর বিহীন লরি আসছে দেখে সন্দেহ জাগে। লরিটি বন্ধ করে। চালক বিষয়টা টের পেলে পুলিশকে ধাক্কা মেরে লরি থেকে নেমে মিশন রোডের দিকে দৌড় দেয়। তবে স্থানীয় জনগণ লরি চালককে ধরে ফেলেন। পরে পুলিশ ওই লরি থেকে সঞ্জয় দেববর্মন ও তুষেন রায়কে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে। হরলিক্স বোঝাই লরির মালিক বুট্টু খান ইউপি-র বাসিন্দা। আর ছিনতাইবাজরাও ইউপি-র একই গ্রামের বলেও জানা যায়।

    আরো দেখুন : মাস্ক ছাড়া ঘর থেকে বের হলেই গুনতে হবে ১০০০ টাকা জরিমানা

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং