19 C
Guwahati
Thursday, January 27, 2022
More

    এনএফ রেলের সব ট্র্যাকই বৈদ্যুতিকরণ হবে, ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে জিএম সঞ্জীব রায়

    শিলচর, ২৯ আগস্ট:  চলতি বছর সেপ্টেম্বরের মধ্যে নিউ কোচবিহার পর্যন্ত রেল ট্র্যাক বৈদ্যুতিকরণ হয়ে মাবে। আগামী বছর এপ্রিল নাগাদ গুয়াহাটি পর্যন্ত এবং সেপ্টেম্বর নাগাদ লামডিং পর্যন্ত রেল ট্র্যাক বৈদ্যুতিকরণের কাজ সম্পূর্ণ হয়ে যাবে। মালিগাও থেকে এক ভারচুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে এ কথা জানান উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) সঞ্জীব রায়। লামডিং থেকে শিলচর আগরতলা পর্যন্ত রেল ট্র্যাক বৈদ্যুতিকরণ কবে নাগাদ হবে, একথা জানতে চাইলে জিএম বলেন, উত্তরপূর্ব সীমান্ত রেলের সব রেল ট্র্যাকই বৈদ্যুতিকরণ করা হবে। লামডিং থেকে ডিব্রুগড় বা শিলচর, আগরতলার ক্ষেত্রে এখনও ফিল্ড সার্ভে করা হয়নি। সমীক্ষার কাজ শেষ হলেই দরপত্র আহ্বান করা হবে বলে জানান তিনি।

    অন্যদিকে, আগামী বছর মে মাস নাগাদ গুয়াহাটি-লামডিং শাখার ডিগারু থেকে হোজাই পর্যন্ত ১০২ কিলোমিটার রেললাইন ডাবলিং এর কাজ সম্পূর্ণ হয়ে যাবে, বলেন জিএম। সেইসঙ্গে নিউ বঙ্গইগাও থেকে গোয়ালপাড়া টাউন ও কামাখ্যা পর্যন্ত ১৭৬ কিলোমিটার রেললাইন ২০২৩-এর মার্চ নাগাদ ডাব্লিং হয়ে যাবে। একইসঙ্গে এই সময়সীমার মধ্যে নিউ বঙাইগাঁও থেকে অজিয়াথরি ভায়া রঙ্গিয়া পর্যন্ত ১৪৬ কিলোমিটার লাইনও ডাবলিং হবে।

    জিএম সঞ্জীব রায় এদিন একটি সুখবরও শোনান। আগামী বছর ফেব্রুয়ারি নাগাদ নিউ বঙ্গাইগাঁওকে পাশ কাটিয়ে গৌরীপুর থেকে অভয়াপুরি পর্যন্ত ৮৬.৪৪ কিলোমিটার নতুন বিকল্প লাইন নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ হয়ে যাবে। সাংবাদিক সম্মেলনে জিএম সঞ্জীব রায় আরও জানান, মার্চ ২০২৩ নাগাদ শিলং ছাড়াও উত্তরপুর্বের সব রাজ্যের রাজধানী রেলের সঙ্গে সংযুক্ত হয়ে যাবে। তিনি বলেন, রেলের সঙ্গে সহজেই ব্যবসা করার সুযোগ বাড়াতে উত্তরপূর্ব সীমান্ত রেল বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ নিয়েছে। তাছাড়া রাজস্ব বৃদ্ধির জন্য পণাবাহী ট্রেনের চলাচল বাড়াতে উত্তরপূর্ব সীমান্ত বেল বেশ কিছু সক্রিয়া পদক্ষেপ নিয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে ট্রেনের গতি বাড়ানো। যাতে আরও বেশি ট্রেন চালানো যায়। মিনি র‍্যাকের অনুমোদিত দূরত্ব ৪০০ কিলোমিটার থেকে বাড়িয়ে ১৫০০ কিলোমিটার করা হয়েছে এবং ৫ শতাংশ সারচার্জ মুকুব করা হয়েছে।

    অন্যদিকে, করোনা পরিস্থিতিতে উত্তরপূর্ব সীমান্ত রেল মালিগাঁও সেন্ট্রাল হাসপাতালে ১২০ বিছানার কোভিড কেয়ার হসপিটাল তৈরি করা হয়েছে। তাছাড়া নিউ বঙ্গাইগাঁওয়ে ৫৪, ডিব্রুগড়ে ৫০ এবং লামডিং রেল হাসপাতালে ৮০ বিছানাযুক্ত কোভিড কেয়ার সেন্টার গড়ে তোলা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৭২৪টি শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চালানো হয়েছে। এতে ৭ লক্ষ যাত্রী চলাচল করেছেন বলে জানান জিএম সঞ্জীব রায়।

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং