26 C
Guwahati
Saturday, October 1, 2022
More

    উপত্যকার অভিন্ন ইস্যুতে বিধায়করা একযোগে তৎপর হোন, ডাক বরাকবঙ্গের

    উপত্যকার অভিন্ন ইস্যুতে বিধায়করা একযোগে তৎপর হোন, ডাক বরাকবঙ্গের

    শিলচর, ২৪ মে  : অসম বিধানসভায় বরাক উপত্যকা থেকে নব নির্বাচিত বিধায়করা সব ভিন্নতাকে দূরে সরিয়ে রেখে মাটির টানে সময়ের দাবি মেনে বাংলা এবং মাতৃভাষায় শপথ গ্রহণ করায় তাদের উষ্ণ অভিনন্দন জানালো বরাক উপত্যকা বঙ্গ সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্মেলন। একষট্টির মাতৃভাষা  আন্দোলনের ষাটতম বার্ষিকীতে ভাষা শহিদদের প্রতি এভাবে তাঁদের আন্তরিক শ্রদ্ধা নিবেদন এক ঐতিহাসিক ঘটনা হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে বলে সম্মেলন মত ব্যক্ত করেছে। একইসঙ্গে মন্ত্রী পরিমল শুক্লবৈদ্য দিসপুরে সরকারি মন্ত্রী নিবাসে  সংক্ষিপ্ত পরিসরে হলেও ভাষা শহিদ দিবস উদযাপনের ব্যতিক্রমী আয়োজন করায় তাঁকেও ধন্যবাদ জানিয়েছে সম্মেলন।  

    বরাক বঙ্গের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক গৌতম প্রসাদ দত্ত এক বিবৃতিতে এ কথা উল্লেখ করে বলেছেন, সাম্প্রতিক নির্বাচনে এই উপত্যকা থেকে নির্বাচিত বিধায়কদের কাছে এ অঞ্চলের মানুষের যে আবেগিক প্রত্যাশা ছিল প্রথম ধাপে তা  পূরণ করে তাঁরা ধন্যবাদার্হ হয়েছেন। মাতৃভাষার প্রতি তাঁদের শ্রদ্ধা, আন্তরিকতা ও মমত্ববোধের পরিচয়ই এতে স্পষ্ট হয়েছে। এটা আগামীদিনেও অব্যাহত থাকবে এমনটাই আশা করছেন উপত্যকাবাসী। পাশাপাশি এই ঘটনাক্রমে দলমতের উর্দ্ধে এক আঞ্চলিক ঐক্যবোধের বার্তাও তাঁরা দিয়েছেন, যা এই মূহুর্তে  ছিল খুবই কাঙ্ক্ষিত । উপত্যকার স্বার্থে অভিন্ন বিষয়ে এই ঐক্যবোধ আগামীদিনেও জরুরি মনে করছেন এই অঞ্চলের মানুষ । 

    অর্জিত ভাষিক অধিকারের সুরক্ষা ও আগ্রাসনরোধ, কর্মসংস্থান, পরিকাঠামোগত বিকাশ, শিল্পায়ন, ডি ভোটার, নাগরিকত্ব ইত্যাদি  ক্ষেত্রে বরাক উপত্যকার  যে নিজস্ব সমস্যা রয়েছে সেটা দূর করার জন্য দলীয় গন্ডির বাইরে এসে জনপ্রতিনিধিরা বিধানসভার ভেতরে-বাইরে একযোগে তৎপর হলে সুফল মিলতে পারে। অতীতের কথা উল্লেখ করে বিবৃতিতে বলা হয়, উপত্যকার প্রয়াত জননেতা বিমলাংশু রায় তাঁর পরিষদীয় রাজনৈতিক জীবনে এ ক্ষেত্রে  উদ্যোগী হয়ে যে সমন্বয়ী প্রয়াস শুরু করেছিলেন, দলমতের উর্দ্ধে অন্যান্য বিধায়ক  ও সাংসদরা তাতে সামিল হওয়ায় দিসপুরে ঐক্যবদ্ধভাবে উপত্যকার সমস্যা কিছুদিন একযোগে তুলে ধরা সম্ভব হয়েছিল। এরফলে সরকারের কাছ থেকে  কিছু কিছু ক্ষেত্রে সদর্থক সাড়াও মিলেছিল। নানা টানাপোড়েনে তার ধারাবাহিকতা  বজায় না থাকায় বহু জরুরি সমস্যার সমাধান অধরা থেকে গেছে। সেই ধারায় ফের কাজ শুরু করা এখন সময়ের দাবি হয়ে উঠেছে। 

    বিবৃতিতে উপত্যকার অভিন্ন স্বার্থে দিল্লি-দিসপুরে তৎপরতার আহ্বান জানিয়ে বলা হয়, দলগত রাজনীতি থাকুক তার জায়গায়, এর বাইরে জরুরি ইস্যুতে একযোগে কাজ না করলে এই উপত্যকার জনগণ নানাভাবে বিড়ম্বনার শিকার হবেন, ক্ষুন্ন হতে পারে সাংবিধানিক অধিকার। অসম চুক্তির ছয় নম্বর ধারা রূপায়ণের মাধ্যমে কেবল ভূমিপুত্রদের জন্য সমস্ত অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও জমির অধিকার সংরক্ষণের যে প্রতিশ্রুতি নতুন বিভাগীয় মন্ত্রী দিয়েছেন, তাতে সিদুরে মেঘ দেখছেন উপত্যকার জনগণ। রাজ্যের নয়া মুখ্যমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মা সব জনগোষ্ঠীকে নিয়ে এক সমৃদ্ধ অসম গঠনের যে  প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তার পটভূমিতে বরাকের কথা বিধায়ক-সাংসদরা একযোগে তুলে ধরলে সরকারের দরবারে নিঃসন্দেহে তা গুরুত্ব পেতে পারে।

    আরো দেখুন : শান্তির পথে আলফা? কেন্দ্রের কোর্টেই বল ঠেললেন পরেশ বরুয়া

    Published:

    Follow TIME8.IN on TWITTER, INSTAGRAM, FACEBOOK and on YOUTUBE to stay in the know with what’s happening in the world around you – in real time

    First published

    ট্ৰেণ্ডিং